নিজস্ব সংবাদাতা: পারিবারিক বিবাদের জেরে গোবরডাঙ্গা থানার অন্তর্গত বেড়গুমের বাসিন্দা গৃহবধূ তাজমিরা বিবি (৩০)-এর অস্বাভাবিক মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। মঙ্গলবার গভীর রাতে ওই গৃহবধূ গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে জানা যায়।

গোবরডাঙ্গা থানার পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়ে দেয় এবং গৃহবধূর বাপের বাড়ি অভিযোগের ভিত্তিতে গৃহবধূর স্বামী রাজু মন্ডল সহ শাশুড়ি ও শ্বশুরকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছে। মৃতার বাবা মাহাতাব আবেদীন (মন্ডল) জানান, আমার মেয়ে তাজমিরা বিবির দুই ছেলে সন্তান। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে গন্ডগোল হওয়াতে ১০-১২ দিন আগে বাপের বাড়ি এই জেলার কাতিয়ার্বাগ চম্পাপুকুরে চলে আসে ছোট ছেলেকে নিয়ে। বড় ছেলে ওর শ্বশুরবাড়িতেই ছিল।

বাড়িতে এসে আমাদের তাজমিরা জানিয়েছিলেন যে ওর স্বামী রাজু মন্ডল ওকে মারধর করতো এবং বাড়ি থেকে টাকা নিয়ে আসার জন্য চাপ দিত। ঘটনার আগের দিন অর্থাৎ সোমবার রাজু বাইকে করে নিয়ে যায় লোনের একটা টাকা তুলবে বলে। এরপর মঙ্গলবার গভীর রাতে আনুমানিক তিনটে নাগাদ তাজমিরা বিবির বাবাকে ফোন করে মৃত্যুসংবাদ জানায়।

মাহাতাব আরও জানান, বিয়ের পর থেকে শুরু করে এমনকী এই করোনার মধ্যেও স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে গন্ডগোল সবসময় লেগে থাকত। সঙ্গে মারধোর করতো। বাপের বাড়ি থেকে টাকা নিয়ে আসার জন্য চাপ দিত রাজু ও তার পরিবার। আমরা মেয়েকে হারালাম। আমি নিতান্ত দিনমজুর, অত টাকা কোথা থেকে দেবো? আমরা চাই দোষীদের চরম শাস্তি হোক।পুলিশ স্বামী ও শশুর শাশুড়ি কে গ্রেফতার করে আজ তাদের বারাসত আদালতে পাঠানো হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here