ক্যানিং হাসপাতালে শিশু চুরির ঘটনা ঘটলো সোমবার সকালে।

ঘটাটি ঘটেছে খোদ ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে।আর এমন ঘটনায় হাসপাতাল সহ এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ালো।

উল্লেখ্য ভ্যাকসিন দেওয়ার নাম করে সকলের অলক্ষ্যে লেবার রুম থেকে সদ্যজাত শিশু কন্যা কে চুরি নিয়ে গেলো চোর। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সিসি ক্যামেরা ফুটেজ তুলে দিয়েছেন ক্যানিং থানার পুলিশের হাতে।

ক্যানিং থানার পুলিশ সিসি ক্যামেরা ক্ষতিয়ে দেখে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। হাসপাতাল সুত্রে জানাগেছে সোমবার সকালে জীবনতলা থানার বাঁশড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের নবপল্লির বাসিন্দা রুপাইয়া নাথ গর্ভস্থ অবস্থায় ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন।

The theft of the child took place at Canning Hospital

সকালেই তিনি এক কন্যা সন্তানের জন্ম দেয়।চিকিৎসকরা পরে বুঝতে পারেন তাঁর গর্ভে আরো একটি সন্তান রয়েছে। ঘন্টা তিনেক পর আবারও তিনি আর এক কন্যা সন্তানের জন্ম দেয়।

এদিন সকাল প্রায় নটা নাগাদ রুপাইয়া নাথের আত্মীয় পরিচয় দিয়ে নাজমা খাতুন নামে এক মহিলা ভ্যাকসিন দেওয়ার নাম করে প্রথম কন্যাশিশু কোলে তুলে নেয়।

সকলের অলক্ষ্যে সদ্যজাত শিশু চুরি করে নিয়ে পালিয়ে যায়।সময় অতিবাহিত হওয়ার সাথে সাথে প্রথম সদ্যজাত শিশুকন্যার খোঁজ করেন রুপাইয়া নাথ।

কন্যাশিশু কে না পেয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন ওই মহিলা।ঘটনার খবর পেয়ে মুহূর্তে নড়েচড়ে বসে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। শুরু হয় সদ্যজাত শিশুর খোঁজ। ক্ষতিয়ে দেখা হয় হাসপাতালের সিসি ক্যামেরা।

ঘটনাস্থলে আসে ক্যানিং থানার আইসি আতিবুর রহমান সহ অন্যান্য পুলিশ কর্মীরা। তাঁরা হাসপাতালের সিসি ক্যামেরা ফুটেজ ক্ষতিয়ে দেখে তদন্ত শুরু করেন।

এই ঘটনায় দুজন কে আটক করে জিঞ্জাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ।

ঘটনার বিষয়ে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতাল সুপার অপূর্বলাল সরকার বলেন “ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক। কি ভাবে এবং কার গাফিলতিতে এমন ঘটনা ঘটলো সে বিষয়ে পূর্ণাঙ্গ তদন্ত শুরু হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here