বারাসাতের একটি বেসরকারি নার্সিং হোম এর বিরুদ্ধে নার্সের গাফিলতিতে সদ্যোজাত শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ মৃত শিশুর পরিবারের।
গত ৪ ই নভেম্বর সকালে বারাসাতে একটি বেসরকারি নার্সিংহোমে প্রসব যন্ত্রণার দরুন দীপঙ্কর বিশ্বাস তার স্ত্রীকে ভর্তি করান।

সকাল ১১ টা নাগাদ তাদের একটি পুত্র সন্তান হয়। প্রসব হওয়ার পর সন্তান ভালই ছিল। কিন্তু রাত পোহাতেই হার্টের সমস্যা জনিত কারণে মৃত্যু হয় বাচ্চার, পরিবারকে জানাই নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ। সদ্যোজাত শিশুর মৃত্যুতে ভেঙে পড়ে পরিবার।

এরপর তারা সৎকার করে ফেলে মৃত শিশুর। সুস্থ সদ্যোজাত শিশুর আকস্মিক মৃত্যুতে সন্দেহ হয় পরিবারের। এরপর পরিবারের লোকজন নার্সিংহোমে এসে কর্তৃপক্ষের কাছে সিসিটিভি ফুটেজ দেখতে চায়।

নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ প্রথমে সিসিটিভি ফুটেজ দেখাতে অস্বীকার করে, কিন্তু পরে পরিবারের লোকজনদের চাপাচাপিতে সিসিটিভি ফুটেজ দেখাতে বাধ্য হয়। পরিবারের লোকজনের অভিযোগ, সিসিটিভি ফুটেজ স্পষ্ট, সেদিন রাত ১২:৪৫ থেকে ভোর ৫:৩০ মিনিট পর্যন্ত কর্তব্যরত নার্স ও আয়া ঘুমিয়ে থাকেন।

ভোরের দিকে একা এসে শিশুর শোয়া অবস্থায় দুধ খাইয়ে শরীরে কাপড় চাপা দিয়ে চলে যায়। রাতে কর্মরত অবস্থায় একজন কর্তব্যরত নার্স কিভাবে ঘুমিয়ে পড়ল তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছে মৃত শিশুর পরিবারের লোকজন।


এরপর ওই কর্মরত নার্সের গাফিলতির অভিযোগ তুলে নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষের কাছে গেলে, নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ এক প্রকার দায় এড়ানোর মতন কথা বলে। পরিবারের লোকজনের অবিলম্বে এই নার্সিংহোম বন্ধ করার দাবি তোলেন, যাতে আর কোন শিশুকে নার্সের গাফিলতিতে এরকমভাবে মরতে না হয়। তালাব ঘটনাটা নিয়ে থানায় অভিযোগ করবেন বলেও জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here