গত ১২ সেপ্টেম্বর খড়দহ থানার অন্তর্গত কামারহাটি বিটি রোডের উপর একটি লরির মধ্যে একটি মৃতদেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়ায়। লরির মালিক এর কথায় সকালবেলা দরজা খোলার জন্য ডাকাডাকি করতে সাড়া মেলেনি। পরে এলাকার লোক নিয়ে দরজা খুলতেই গাড়ির চালক আসিফ আলীর (22) মৃত দেহ নজরে আসে। পরে খড়দহ থানায় খবর দিলে পুলিশ তদন্তে নামে।

আজ এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত 3 জনকে গ্রেফতার করে খড়দহ থানার পুলিশ। তিনজনের নাম হল রিয়াজউদ্দিন (রাজা, বরে), মোহাম্মদ নবাব(নেপালি), মোহাম্মদ নাসিম(ভিকি)। তিনজনই ঘটনার কথা স্বীকার করে নিয়েছে। এই ঘটনার মাস্টারমাইন্ড ছিল মোঃ নওয়াব ওরফে (নেপালি)। প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে সন্দেহের জেরেই এই খুন। মোঃ নওয়াব এর বউর সাথে আসিফ আলির অবৈধ সম্পর্ক ছিল, এই সন্দেহের জেরেই গত তিন থেকে চার মাস ধরে খুন করার পরিকল্পনা করছিল।

গত 11 সেপ্টেম্বর রাতের বেলা চার বন্ধু মিলে লরিতে বসে মদ্যপান করে। মদ্যপান করার পর তারা চলে যায়। ঠিক তার দুই থেকে তিন ঘণ্টা পরেই তারা আবার ঘুরে আসে এবং আসিফ কে খুন করে বলেই আপাত ভাবে জানা যাচ্ছে। আজ তাকে খড়দহ থানার পক্ষ থেকে 10 দিনের পুলিশি হেফাজতে ব্যারাকপুর কোর্টে পাঠানো হলো

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here