রায়দিঘি বিধানসভায় ভারতীয় জনতা কিষাণ মোর্চার পক্ষ থেকে অটল বিহারী বাজপেয়ীর এর জন্মদিন পালন এবং বিজেপির শাখা সংগঠন এর পরিচয়পর্ব আলোচনা করেন।উপস্থিত ছিলেন কিষান মোর্চার কনভেনার ও জেলার সহ-সভাপতি প্রদ্যুৎ বৈদ্য, জেলা সভাপতি মিলন মজুমদার ও রায়দিঘি ও মথুরাপুর বিজেপির জেলা সংগঠনের মন্ডল সভাপতিবৃন্দ।

রায়দিঘি বিধানসভার কনভেনার কিষান মোর্চার সহ-সভাপতি প্রদ্যুৎ বাবু বলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী কৃষক বিলের বিরোধিতা করে যখন রাস্তায় রাস্তায় নামছে। তখন কৃষকদের মুখে হাসি ফোটাতে পশ্চিমবঙ্গের প্রধানমন্ত্রী সমস্ত কৃষক বন্ধুর একাউন্টে টাকা পাঠাচ্ছে।

তৃণমূল যতই বিরোধিতা করবে ততোই বিজেপির পক্ষে লাভ হবে। রায়দিঘি ও মথুরাপুর এলাকায় আম্ফান প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তরা ক্ষতিপূরণ পায়নি।কেবল তৃণমূল নেতারা ও অট্টালিকা পাকা বাড়ি গুলি ক্ষতিপূরণ পেয়েছে। সাধারণ মানুষ শুধু ফর্মর পর ফর্ম জমা দিয়ে গিয়েছে।

সাধারণ মানুষের জন্য কেন্দ্রীয় সরকার যেটুকু চাল পাঠিয়েছিল সেই চাল ,ডাল চুরি করে খাচ্ছে। এমন তৃণমূল সরকারের দরকার নেই ,মানুষ বুঝে গিয়েছে।

2021 এ পশ্চিমবঙ্গ থেকে তৃণমূল নামক এক রাজনৈতিক দল সম্পূর্ণ মুছে সাফ হয়ে যাবে। মুখ্যমন্ত্রী যতগুলি প্রকল্প আছে সম্পূর্ণ মিথ্যা প্রকল্পের ঝুলি । এই প্রকল্প গুলি তার আগে ভারতবর্ষের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি মানুষের জন্য প্রকল্পগুলি যখন পাঠানো হচ্ছে ।

তখন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী সেই প্রকল্পগুলি বিপরীত নাম দিয়ে বার করছে।এখন প্রকল্প বার করেছে যমের দুয়ারে সরকার। তৃণমূল সরকারের বিদায় ঘন্টা বেজে গিয়েছে তার আগে বিদায়ী শ্রী প্রকল্প চালু করা দরকার।

রায়দিঘি বিধানসভা অঞ্চলে সাধারণ মানুষ সাংগঠনিক মঞ্চে ভিড় জমায় প্রায় 2 হাজার কর্মী-সমর্থকরা। তাদের হাতে অটলবিহারী বাজপেয়ীর জন্মদিন উপলক্ষে প্রদ্যুৎ বাবু কেক ও অন্নকূট এর ব্যবস্থা করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here