নদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জের বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাসের খুনের মামলায় সোমবার রানাঘাট মহকুমা আদালতে জামিনের হাজিরার জন্য উপস্থিত হল রানাঘাটের সাংসদ জগন্নাথ সরকার তার কর্মী ও সমর্থকেরা।এদিন সকাল থেকে রানাঘাট আদালত চত্তরে রানাঘাট পুলিশ জেলার পুলিশ প্রশাসন কড়া নিরাপত্তা বলয়ে মুড়ে ফেলা হয় ওই এলাকা।রানাঘাট লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ জগন্নাথ সরকারের বিরুদ্ধে ওঠা সপ্তাহ খানেক আগে সি আই ডি সাপ্লিমেন্টারী চার্জশিট পেশ করেন।তার প্রেক্ষিতে এদিন সাংসদ জগন্নাথ সরকার কোর্টে জামিন নেবার জন্য আসেন।

জগন্নাথ বাবুর আইনজীবী রাজা ব্যানার্জী জানায় মহামান্য হাইকোর্টের আদেশে তার বিরুদ্ধে ওঠা মামলার তদন্তে জগন্নাথ বাবুকে ভবানীভবনে ডেকে জেরা করা হয়।এছাড়া মহামান্য হাইকোর্ট এ তার মামলার শুনানী হলে সরকারীভাবে তার চরম বিরোধীতা করা হয়। তার আগাম জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করা হলে তা বিচারকেরা চিন্তাভাবনা করে তার জামিন মঞ্জুর করেন।

জগন্নাথ বাবুর আইনজীবী রাজা ব্যানার্জী আরও জানান ১১ই মার্চ ২০২০ তারিখে তার ট্রায়াল শেষ হয়।আজ রানাঘাট আদালতের ACJM প্রত্যয় চৌধুরী এজলাসে তোলা হলে তিনি হাইকোর্টের আদেশে তার জামিন মঞ্জুর করেন।আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী সাংসদ জগন্নাথ সরকারের বিরুদ্ধে ওঠা মামলার জন্য তাকে তার পাসপোর্ট এবং প্রতিমাসে কোর্টে একবার করে হাজিরা দিতে হবে।এই মামলার নিস্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত এই নিয়ম বহাল থাকবে বলে আদালত সুত্রে জানাগেছে।

অন্যদিকে সাংসদ জগন্নাথ সরকার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে জানান তাকে মিথ্যা মামলায় ফাসানো হয়েছে।২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনের আগে রাজ্যের শাসক দল এবং রাজ্যের প্রশসন ঘোলা জলে মাছ ধরতে চাইছে।বিজেপি নেতৃতের একাংশের দাবী এইভাবে আমাদের সাংসদকে মিথ্যা মামলায় হয়রানী করা যাবে না।সত্যের জয় হবেই একদিন বলে মনে করে বিজেপির নদিয়া দক্ষিনের নেতৃত্ব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here