বসিরহাট মহকুমার বসিরহাট ২নং ব্লকের ধান্যকুড়িয়ার দুই যোদ্ধা ললিত মোহন বাইন ও সনৎ মণ্ডল নেতাজিকে গ্রামে নিয়ে এসেছিলেন।

যাতে গ্রামের মানুষের সংস্পর্শে এসে দেশনায়কের কথায় উদ্বুদ্ধ হয়ে ব্রিটিশদের হাত থেকে দেশকে স্বাধীনতা এনে দেয়।

সুভাষ বোসকে আনার সুবাদে ধান‍্যকুড়িয়ার তৎকালীন জমিদার লেঠেল বাহিনীর হাতে অত্যাচারিত হয়েছিলেন। আজ সেই স্মৃতি আঁকড়ে ধরে মণ্ডল পরিবারের সদস্য ও বাইন পরিবারের সদস্য ছন্দক বাইনরা দাবি তুললেন নেতাজি সুভাষচন্দ্র বোসের ১২৫ তম জন্ম দিবসকে সামনে রেখে এখানে একটি স্মৃতিসৌধ তৈরি হোক।

ইতিমধ্যে ললিত মোহন বাইনের উত্তরসূরিদের জন্য তাদের জমির উপর এই স্মৃতিসৌধ তৈরি হোক। তারই প্রাথমিক কাজ শুরু হলো রবিবার ধান্যকুড়িয়া বাইন পাড়ায়।

উপস্থিত ছিলেন বসিরহাট প্রেস ক্লাবের সদস্য ছন্দক বাইন, বারাসাত প্রেস ক্লাবের বিপ্রতীপ দে ও ব্যারাকপুর প্রেসক্লাবের সদস্য থেকে শুরু করে এই জেলার শিল্পী সাহিত্যিক বিশিষ্টজনেরা।

তার পাশাপাশি বিশিষ্ট সাহিত্যিক মতিলাল দে আজ এই মহেন্দ্রক্ষণে তার শুভসূচনা হল। ধান্যকুড়িয়া গাইন জমিদারবাড়ির সদস্য মনোনীত গাইন ও শিক্ষিকা লাবনী বাইন তাদের জমানো অর্থ দিয়ে এই স্মৃতিসৌধের প্রাথমিক শুভ সূচনার কাজ শুরু করলেন।

আপ্লুত অভিভূত গ্রামের মানুষ। বাইন পরিবারের সদস্য ছন্দক বাইন জানান নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু বসিরহাট হাই স্কুল মাঠ থেকে প্রকাশ্য জনসভা করে মার্টিন রেল চেপে ধান্যকুড়িয়া খাল পর্যন্ত গেলে সেখানে গ্রামের দুই বীরযোদ্ধা ললিত মোহন বাইন ও সনৎ মন্ডল নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর কাছে গিয়ে আকুল আবেদন গ্রামে যাওয়ার জন্য। সেই সময় গ্রামে নিয়ে যাওয়ার ফলে সেখানকার যোদ্ধাদের হাতে আক্রান্ত হয়েছিল এই দুই যোদ্ধা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here