একদিনে দুই নাবালিকা ছাত্রীর বিয়ে রুখে দিলেন ফারাক্কার ব্লক প্রশাসন ,ফরাক্কা ব্লকের দুই নম্বর নিশিন্দা কলোনি।

স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী রচনা হালদার বয়স 12 ,ফেব্রুয়ারি মাসের 7 তারিখ নদীয়া জেলার কৃষ্ণনগরে বিয়ে ঠিক করেছিল পরিবার ,অপরদিকে দুই নম্বর নিশিন্দা কলোনির সুভাষপল্লী সন্ধ্যা হালদার বয়স 15, আগামী 5 ফেব্রুয়ারি বিয়ের আয়োজন করেছিল পরিবার।উত্তর দিনাজপুরের গঙ্গারামপুরে|

নিউ ফরাক্কা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পাঠরত দুই ছাত্রী, আমন্ত্রিতদের নিমন্ত্রণ প্রায় শেষ বাড়িতে প্যান্ডেল বাধার কাজ শুরু হয়েছে জোর কদমে| গোপন সূত্রে খবর পেয়ে শুক্রবার দুপুরে হানা দিয়ে ফরাক্কা বিডিও রাজশ্রী চক্রবর্তী, আইসি জয়দেব ঘোষ, সিডিপিও সান্তনু রায়, মহাদেবনগর রুরাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটি, কো-অর্ডিনেটর শ্যামল কুমার সরকার, সম্পাদক জাহিদ হাসান তরুণ, রবিউত্তর দিনাজপুরের গঙ্গারামপুরেউল ইসলাম ও গোপাল চক্রবর্তী।

নাবালিকা দুই ছাত্রীর পরিবারের অভিভাবক দের মুচলেকা দিয়ে বন্ধ করে দিলেন বিয়ে। রাজ্য সরকার লাগাতার বাল্যবিবাহ রোধে সচেতনতা শিবির করলেও গ্রামবাসীদের গোপনে বাল্যবিবাহ দেওয়ার প্রবণতা ফের আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল ফারাক্কার দু’নম্বর নিশিন্দরা কলোনির 2 নাবালিকা ছাত্রীর বিয়েতে।

নাবালিকা ছাত্রীর বিয়ের আয়োজনে যদিও এ বিষয়ে ফরাক্কা প্রশাসন যথেষ্ট সচেতন তা বলা যেতে পারে শুধু মুচলেখা দিয়ে বাল্যবিবাহ রোধ করা সম্ভব নয় এর জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করা প্রয়োজন এ বিষয়ে সরব হয়েছেন গ্রামবাসীরা।

বিয়ে বন্ধ ও মুচলেখা দেবার পর ও বিডিওর ড্রাইভার গোপাল চক্রবর্তী কে হাতে হ্যান্ড মাইক নিয়ে প্রচার করতে দেখা যায় বাল্যবিবাহ বন্ধ করার জন্য।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here