ছত্রিশ বছরেও থেমে থাকতে না চাওয়া টেবিল টেনিস তারকা মৌমাকে দেশের হয়ে আরো পদক আনতে অনুপ্রাণিত করছে পদ্মশ্রী সম্মান

দেশের প্রথম মহিলা টেবিল টেনিস তারকা হিসেবে পদ্মশ্রী সম্মান পেলেন মৌমা দাস আর পদ্মশ্রী পেয়ে তা উৎসর্গ করলেন এক বছরের শিশুকন্যা অদিত্রীকে ।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রক থেকে মঙ্গলবার রাতে পদ্মশ্রী পাওয়ার কথা জেনে বাড়িতে বলতেই স্বামী কাঞ্চন চক্রবর্তী ও বাড়ির সদস্যরা আনন্দে মাতলেন, বাড়ির সবাই বলছেন বাড়িতে লক্ষ্মী হয়ে এসেছে অদিত্রী।

মেয়ের সৌভাগ্যই এনে দিয়েছে পদ্মশ্রী । দেশের সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মানগুলির অন্যতম পদ্মশ্রী মৌমাকে করোনা আবহর দুঃসময় কাটানোর অক্সিজেন দিচ্ছে আর প্রেরণা যোগাচ্ছে দেশের হয়ে আরো আরো খেতাব আনার ।

প্রসঙ্গত,দুহাজার উনিশ সালে পুরুষ টেবিল টেনিস খেলোয়াড় হিসেবে কমল সারথ প্রথম পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত হয়েছিলেন ।

এই প্রথম কোনো মহিলা টেবিল টেনিস পেলেন পদ্মশ্রী । মৌমাকে দেশের হয়ে আরো খেতাব আনার জন্য তাতাচ্ছে এই অনন্য বিষয়টি ।

মৌমা আগেও অনেক পুরস্কার জিতেছেন ।কিন্তু পদ্মশ্রী সম্মানের কৌলিন্য ও মর্যাদা অন্য তাৎপর্য আনে ।

সেদিক থেকে পদ্মশ্রী মৌমার মুকুটে আর একটি পালক হিসেবে যুক্ত হলেও মৌমার কাছে এর উপলব্ধি অন্য মাত্রার ।

মৌমা ২০১৩ সালে সর্বোচ্চ ক্রীড়া পুরস্কার অর্জুন পেয়েছিলেন আর ৯৯ সালে জাতীয় খেতাব জেতার পরে পাঁচ বারের জাতীয় চ্যাম্পিয়ন মৌমা একের পর এক আন্তর্জাতিক খেতাব জিতেছেন ।

২০১৮ সালে কমনওয়েলথ গেমসে দলগত সংহতির ফসল হিসেবে জিতেছেন সোনা । এরপরে দুহাজার কুড়ির অলিম্পিককে পাখির চোখ করলেও করোনা আবহে তা আর হয়ে ওঠে নি ।

তেরো মাস আগে অদিত্রীর জন্ম । করোনা আবহে এরপরে আবার টেবিল টেনিস বোর্ডের ফেরার তোড়জোড় চলছিল । এরমধ্যে এল পদ্মশ্রী।

রাত থেকেই টেবল টেনিস ফেডারেশনের কর্মকর্তা থেকে শুরু করে কমনওয়েলথ গেমসে সঙ্গী মনিকা বাত্রা র বাড়ি থেকেও এসেছে ফোন ও শুভেচ্ছা বার্তা ।

আত্মীয় স্বজন থেকে আরম্ভ করে খেলোয়াড় থেকে সাধারণ মানুষ সবাই শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন আর এসবই মনের জোর বাড়াচ্ছে মৌমার ।

সামনের মাসের চব্বিশ তারিখ ৩৭ বছর বয়স হবে মৌমার তবু থেমে থাকতে রাজী নন মৌমা। জেদ আরো বাড়ছে, চিবুক শক্ত করে বলছেন দেশের হয়ে আরো খেতাব জিততে চাই ।

কমল শারথের পরে দ্বিতীয় এবং মেয়েদের মধ্যে প্রথম পদ্মশ্রী জয়ী মৌমার দু চোখ ভরেই দেশের জন্য সম্মান আনার স্বপ্ন আরো গভীর হচ্ছে ।।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here