দেগঙ্গায় এক ব্যক্তিকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে খুন করার অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেফতার অভিযুক্ত, বারাসাতে জেলা পুলিশ সুপার দপ্তরে সাংবাদিক বৈঠকে এ কথা জানালেন বারাসাত জেলা পুলিশ সুপার অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রসঙ্গত গত সেপ্টেম্বর মাসের 2 তারিখ দেগঙ্গা থানার অন্তর্গত নন্দীপাড়া এলাকায় আব্দুল সাইফুল মল্লিক নামে এক ব্যক্তিকে তার বাড়ির পাশের আমবাগান থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

পরিবারের অভিযোগ, রাত 11 টা নাগাদ কোন অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তি ফোন করে শরিফুল মল্লিককে বাড়ির পাশের আমবাগানে ডেকে পাঠায়। ফিরতে দেরি হলে পরিবারের লোকজন খোঁজাখুঁজির পর দেখে, আমবাগানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় শরিফুল মল্লিক পরে রয়েছে। দেহে একাধিক ধারালো অস্ত্রে আঘাত ছিল।

এরপর বারাসাত জেলা হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়, অবস্থার অবনতি হলে কলকাতা আরজিকর হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হলে ৮ ই সেপ্টেম্বর সাইফুল মল্লিক মারা যায় পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে খুনির মামলা রুজু করে পুলিশ তদন্তে নামে।

একমাস পর শেষমেষ অভিযুক্ত পুলিশের হাতে ধরা পড়ে।জেলা পুলিশ সুপার অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, মৃত ব্যক্তির অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ তদন্তে নেমে একমাস পর বর্ধমান থেকে অভিযুক্ত সাইফুল আরিফ গ্রেফতার করে।

টাকার দেনাপাওনা সংক্রান্ত বিবাদের জেরে এই খুন। জিজ্ঞাসাবাদে খুনের ঘটনা স্বীকার করেছে ধৃত সাইফুল আরিফ। দুদকে পাঁচদিনের পুলিশ হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। এই ঘটনা আর কেউ জড়িত আছে কিনা তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here