নিজস্ব সংবাদদাতা: ঝাড়গ্রাম উৎসবের সময় মানুষের পাশে দাঁড়াতে এগিয়ে এলো সুবর্ণরৈখিক ভাষা ও সংস্কৃতি চর্চা বিষয়ক ফেসবুক গ্রুপ “আমরকার ভাষা, আমারকার গর্ব ,।রাঢ় বাংলা তথা সুবর্ণরৈখিক অববাহিকার প্রধান উৎসব মকর সংক্রান্তি।

কৃষিসংস্কৃতি সঙ্গে যুক্ত এই উৎসবের আনন্দ প্রান্তিক মানুষদের কাছে একটু বেশি করে পৌঁছে দিলো সুবর্ণরৈখিক ভাষা ও সংস্কৃতি চর্চা বিষয়ক ফেসবুক গ্রুপ “আমরকার ভাষা,আমারকার গর্ব”। বুধবার মকর সংক্রান্তির প্রাক্ সন্ধ্যায় গ্রুপের আশকোলা শাখার উদ্যোগে এবং গ্রুপের অন্যতম সদস্য খড়্গপুর আই আই টির অধ্যপক ড.ভানুভূষণ খাটুয়ার সহযোগিতায় ১০১ জন দুঃস্থ মানুষের হাতে শীতবস্ত্র তুলে দেওয়া হলো।

ঝাড়গ্রাম জেলার গোপীবল্লভপুর ২ নম্বর ব্লকের আশকোলা গ্রামের মনসা থানে আয়োজিত এক মিলন সমারোহে স্থানীয় আশকোলা, ডাংরা, ভাটপাড়া ও টিকায়েৎপুর গ্রামের আর্থিক দিক থেকে কিছুটা পিছিয়ে থাকা শতাধিক নারী-পুরুষের হাতে শীতবস্ত্র ও অন্যান্য পোষাক তুলে দেওয়া হয়।

উৎসবের মরসুমে এই বস্ত্র বিতরণকে ঘিরে এই ফেসবুক গ্রুপের সঙ্গে যুক্ত বিভিন্ন ক্ষেত্রের বিশিষ্ট জনদের উপস্থিতি আশকোলা গ্রামে বসেছিল “চাঁদের হাট”। “আমারকার ভাষা,আমারকার গর্ব” ফেসবুক গ্রুপের পরিচালক মন্ডলীর অন‍্যতম সদস‍্য সমাজকর্মী মুরলীধর বাগের তত্ত্বাবধানে গ্রুপের আশকোলা শাখার প্রবীণ ও নবীন সুবর্ণসেনাদের সহযোগিতায় নৃত্য,সঙ্গীত, আবৃত্তি ও আলোচনার মধ্য দিয়ে মধ‍্য দিয়ে একটি মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

আর এই অনিন্দ‍্যসুন্দর সাংস্কৃতিক কার্যক্রম বস্ত্রদানের সামাজিক কর্মসূচিকে মিলন উৎসবে পরিণত করে।এই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গ্রুপের অন‍্যতম বর্ষীয়ান সদস্য অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক,কবি বাসুদেব ঘোষ । পরিচালক মন্ডলীর পক্ষে উপস্থিত ছিলেন এডমিন রেলওয়ে কর্মচারী বিশ্বজিৎ পাল, শিক্ষক কবি আনন্দ বিশুই, শিক্ষিকা তপতী রানা।

এদিনের অনুষ্ঠানে কবি বর্গের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো,ছিলেন কবি অনিমেষ সিংহ,কবি প্রমীশ প্রতিম পাঁজা, কবি বিষ্ণু সাধন পাণি, কবি শিবরাম আচার্য‍্য ,কবি ভবরঞ্জন মহাপাত্র প্রমুখ। এছাড়াও গ্রুপের সদস‍্য- সদস‍্যার মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক সৌকত আলি শা,শিক্ষক মনিময় সাউ, শিক্ষক বিশ্বজিৎ মহাপাত্র, শিব পাণিগ্রাহী, তনুশ্রী দন্ডপাট, বর্ণালী শুঁই, সুস্মিতা খান,উৎপল জানা,সন্দীপ বাগ সহ অন্যান্যরা।

এই অনুষ্ঠানে যোগ দিতে সুদূর জামশেদপুর থেকে উপস্থিত ছিলেন গ্রুপের সদস্য তথা কমেডিয়ান রাজীব ভ‍ুঁইয়া। ছিলেন গ্রুপের শুভানুধ্যায়ী বিশিষ্ট জনেরাও। এই কর্মসূচির অন্যতম শুভানুধ্যায়ী খড়্গপুর আই আই টির অধ্যাপক ভানুভূষণ খাটুয়া এদিনের মিলন উৎসবে সামিল হয়ে বস্ত্র বিতরণের এই মহতী কর্মসূচিতে অংশ নেন।আশকোলাছাড়াও পাশাপাশি গ্রামথেকে বহু মানুষ এই মিলন সমারোহে যোগ দেন।

গ্রুপের সদস্য সদস‍্য কিশোর রক্ষিতের এই মিলন মেলার সুন্দর মুহূর্তগুলি ক্যামেরাবন্দী করেন। শর্মিলা বাগের আবৃত্তি,আকাশ দাসের নৃত্য,মুকুলেশ মহাপাত্রের সঙ্গীত ছিল এদিনের অনুষ্ঠানের অন্যতম আকর্ষণ। আশকোলার আতিথিয়তা উপস্থিত অতিথিদের মন জয় করে নেয়। ‌অধ্যাপক ভানুভূষণ খাটুয়া,পরের বছর আবার আসার জন‍্য প্রতিশ্রুতি দিয়ে যান।

এই কর্মসূচিতে বিশেষ সহযোগিতা প্রদানকারী সন্দীপ বাগ আগামীদিনেও গ্রুপের পাশে থাকার আশ্বাস দেন। ফেসবুক গ্রুপের এই কর্মসূচি সর্বস্তরের মানুষের প্রশংসা কুড়িয়ে নেয়। কর্মসূচি সুষ্ঠু ভাবে সম্পন্ন হওয়ায় উদ্যোক্তাদের পক্ষে মুরলীধর বাগ উপস্থিত অতিথিবৃন্দ সহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানান।

উল্লেখ্য এদিনের এই কর্মসূচি রূপায়ণে মুরলীধর বাগকে সক্রিয় সহযোগিতা করেন গ্রুপের নবীন প্রজন্মের সুবর্ণসেনা বুবুল বাগ,মানস সাঁতরা,রেলকর্মী অসীম মহাপাত্র, প্রাণ বাগ সহ আশকোলা গ্রামের
সমস্ত তরুণরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here