w

পুজোর প্রসাদ মাখা নিয়ে দুই মহিলার মধ্যে আশান্তি।ঘটনাটি ঘটেছে নদিয়ার রানাঘাট থানার আনুলিয়া মানিকতলায়। গতকাল ছিল ভাদ্র মাসের শেষ শনিবার।রাজ্যের বিভিন্ন গ্রহরাজ মন্দিরে পুজো অর্চনা চলে।

স্থানীয় সুত্রে জানা যায় আদরী বিশ্বাস নামে এক মহিলা মানিকতলার গ্রহরাজ মন্দিরে ছিন্নি প্রসাদ মাখাতে গিয়ে পাত্র ছোট হওয়ায় অনেকে প্রসাদ মাখাতে দেরি হয়।সেই সময় পুস্প মন্ডল ও তার মেয়ে পিংকী মন্ডল তাদের প্রসাদ ওই পাত্রে মাখাতে বলে কিন্তু পাত্র ছোট হওয়ায় আদরী দেবী তাদের প্রসাদ মাখাতে দেরি হবে বলেন।

এরপর সকলকে প্রসাদ দেবার পর দুই পরিবারের সদস্যরা রাস্তা দিয়ে বাড়ি ফেরার সময় আদরী দেবীকে উদ্দেশ্য করে কটুক্তি করে এরপর কথা কাটাকাটিতে জড়িয়ে পড়ে দুই মহিলার পরিবার।একে অপরকে মারধর করে।রাজু বিশ্বাসের স্ত্রী আদরী বিশ্বাসের অভিযোগ প্রতিবাদ করতে গেলে তার মাথার চুল ধরে মারতে থাকে।তার চিৎকারে তার স্বামী রাজু বিশ্বাস ছুটে এসে স্ত্রীকে মারের হাত থেকে বাচায়।

এরপর রাজু বিশ্বাসের প্রতিবেশী শিমুল মন্ডল ও তার মেয়ে পিংকী মন্ডল, স্ত্রী পুস্প মন্ডল তিনজন মিলে রাজু বিশ্বাসকে মারধর করে এবং তার মাথা ফাটিয়ে দেয়।এরপর রাজু বিশ্বাসকে রানাঘাট মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।অন্যদিকে এই ঘটনায় রাতেই রানাঘাট থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে রাজু বিশ্বাসের পরিবার।গোটা ঘটনার তদন্তে রানাঘাট থানার পুলিশ।

প্রসংগত দীর্ঘদিন ধরে রাজু বিশ্বাসের পরিবারেএ সাথে প্রতিবেশী শিমুল মন্ডলের বিবাদ লেগেই ছিল।সেই কারনেই এই ঘটনা বলে প্রাথমিক ভাবে অনুমান করা হচ্ছে। জানাগেছে শিমুল মন্ডলের পরিবারের কারোর কোন ভারতীয় প্রমানপত্র নেই।বেশ কয়েক বছর ধরে ওপার বাংলা থেকে ভারতে চলে আসে।তাদের ভারতীয় নাগরিকত্ব এর প্রমান পত্র কিছুই নেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here